• Parabaas
    Parabaas : পরবাস : বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি
  • পরবাস | সংখ্যা ৯১ | জুলাই ২০২৩ | রম্যরচনা
    Share
  • ফাইনালমেঘ : সমরেন্দ্র নারায়ণ রায়




    "আমি যদি জন্ম নিতেম কালিদাসের কালে"
    "মেঘদূত" লিখতামই হতো যা থাকতো কপালে

    পূর্বমেঘ আর উত্তরমেঘ ওসব এলে বেলে
    তারপরেতে ফাইনালমেঘ, যেমন আই পি এল-এ

    পিছু ডেকে মেঘকে আমার যক্ষ বলতো - ভাই
    আর একখানা অনুরোধ করতে তোকে চাই

    মন দিয়ে শোন সেবার যখন বাবরীর ট্রিপ দিলি
    পুষ্পক রথটাকে নিশ্চয় দেখতে পেয়েছিলি

    ঐ বিষয়েই বলবো কিছু আয় ইদিকে আয়
    দরকারী সব কথা কি আর চেঁচিয়ে বলা যায়

    ব্যাপারটা এই এই তোর ধর বছর কয়েক আগে
    কুবের রাজার মনে হলো রথ তো কাজেই লাগে

    কিন্তু যদি আকাশ পথে চলতো সে রথখানা
    ডানাগুলো বোয়িং, ঘোড়াও রোলস্ থেকে আনা

    কি ভালোই না হতো ট্রাফিক নেই রে লাইন নেই
    ঝঞ্ঝাট একমাত্তর যা সিকিউরিটির, এই

    এই না ভেবে নিয়ে হাজির বিশ্বকর্মার বাড়ি
    ইনিশিয়াল প্রজেক্ট প্ল্যান আর রসগোল্লার হাঁড়ি

    ময়দানবও কাছাকাছিই থাকতো সারাক্ষণ
    কে সি দাসের হাঁড়ি দেখেই গললো তারও মন

    দর কমালো। তবুও কুবের বললো বাজেট নেই
    তাই হলো ঠিক রেট বাড়াবে অন্য জব এলেই

    ময়দানবের ড্রয়িং ট্রয়িং সঙ্গে করে নিয়ে
    দুজন মিস্ত্রি পৌঁছলো ঠিক যক্ষপুরী গিয়ে

    আমার ওপর ভার পড়লো ওদের দেখাশোনা
    মালপত্তর পাহারা আর হিসেব রাখা গোণা

    রামলন্ঠন রামভরোসা বন্ধু হলোই ভালো
    সন্ধ্যেবেলা তিনজনেতে খোলো এবং ঢালো

    জানতে পেরে রাজামশাই গেলেন চটে ভারী
    এক বছরের এ নির্বাসন তাই হলো আমারই

    (কশ্চিৎ কান্তাবিরহগুরুণা স্বাধিকারপ্রমত্তঃ
    শাপেনাস্তংগমিতমহিমা বর্ষভোগ্যেন ভর্তুঃ

    প্রিয়ার গুরুতর বিরহে জরজর
    যক্ষ রহে রামগিরির গায়ে
    জনকতনয়ার সিনানে পূতধার
    ঘেরিয়া জানু যার পাদপছায়...

    কান দিসনে ওদের কথায় কবিরা সব পাকা
    দেখা হলেই কান ধরে আর বলে সরি কাকা)

    ক্রমে ক্রমে পুষ্পক রথ তৈরী তো হয়ে গেলো
    কুবের রাজার ছোট ভাই তা দেখতে চলেও এলো

    লঙ্কাদ্বীপের রাক্ষসদের রাজা রাবণ সেই
    "চালিয়ে দেখি?" এই না বলে পাত্তাটি আর নেই

    (মিস্তিরিরা বানাচ্ছে সেই রথ তো আরেকখানা
    কবে যে শেষ হবে সেটা কারুরই নেই জানা)

    সেই রাবণকে হারিয়ে দিয়ে রথটি কেড়ে নিয়ে
    শো-অফ করে বৌকে সেটায় চাপিয়ে দেশে গিয়ে

    (দূরাদয়শ্চক্রনিভস্য তন্বী তমালতালীবনরাজিনীলা
    আভাতি বেলা লবণাম্বুরাশের্ধারানিবদ্ধেব কলঙ্করেখা)

    রথটি ফেলে রেখেছে ওই অযোধ্যাতে রাম
    যাক সে কথা তুই একবার ওয়ার্কশপে নাম

    রামভরোসা রামলন্ঠন দুই ব্যাটাকেই ধরে
    আনতে পারিস একবারটি একটা দিনের তরে?

    ও হো বোতল ডজন খানেক গেলাসও খান চার
    তুই খাবি তো? হুঁ হুঁ হিসেব অ্যাকিউরেট আমার

    যক্ষিণীকে এসব কিছু বলিস নে আর ভাই
    চটলে পরে চটেই থাকে সে এক কঠিন ঠাঁই

    এই ক' মাষা সোনা ঝেড়ে এনেছিলেম সাথে
    রেখে দে তুই রাহাখরচ থাকুক কিছু হাতে।
    !!!!!!!!!!!!!!
    মেঘকে এতো ডাকাডাকির কারণ এবার বুঝি
    আসল কথা বললে হতো আগেই সোজাসুজি!


    অলংকরণ (Artwork) : দীপঙ্কর ঘোষ
  • মন্তব্য জমা দিন / Make a comment
  • (?)